চলুন সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম করি - ২০১৮

 চলুন সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম করি
আর্টিকেলটি শুরু করার আগে বলিতে চাই আপনি যদি এখনো অনলাইন থেকে ইনকাম করে না থাকেন এবং নতুন হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেলটি । 

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই আমরা সবাই চাই অনলাইন থেকে ইনকাম করার কেউ পারি কেউ পারি না আজকে আমি আপনার সাথে শেয়ার করবো অনলাইন থেকে ইনকাম করার খুবই সহজ কিছু উপায় যেগুলো আপনারা ফলো করলে আপনিও খুব সহজে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন ।  
অনলাইন ইনকাম করতে হলে অবশ্যই আপনার একটি কাজ জানতে হবে উদাহরণস্বরূপ গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি । 
অনলাইন ইনকাম এর কথা বলতে গেলে অবশ্যই প্রথমে youtube-এর কথা বলতেই হয় কারণ ইউটিউব থেকে আপনি অনেক উপায় ইনকাম করতে পারেন । 

কিভাবে ইউটিউব থেকে ইনকাম করবেন ?

বন্ধুরা ইউটিউবে কিন্তু শুধুমাত্র মনিটাইজেশন দিয়েছে ইনকাম হয় তা না আপনি ইউটিউব থেকে বিভিন্ন ভাবে ইনকাম করতে পারেন আপনি যদি একটু পপুলারিটি ইউটিউবে কালেক্ট করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনার ইনকামের রাস্তা অনেক নতুন অবস্থায় আপনার ইনকাম  না হলেও আপনি যদি এক থেকে দুই মাস একটু কষ্ট করে ইউটিউব চ্যানেল টাকে একটা লেভেলে নিয়ে যেতে পারেন তাহলে আপনি কিন্তু ভিউজ পরিমাণের ইনকাম করতে পারেন । কিন্তু আপনাকে ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও কোয়ালিটি ফুল তৈরি করতে হবে । কারণ বর্তমানে আপনি যে টপিক নিয়ে ইউটিউবে সার্চ করুন না কেন আপনার সামনে হাজার হাজার রেজাল্টস চলে আসবে আপনার ভিডিওটা ও সেই কুয়ালিটির হবে যে কোয়ালিটির ভিডিও এর আগে মানুষ তৈরি করেছে ।  তাই মানুষ অবশ্যই আপনার ভিডিও তখন দেখবে যখন অন্যান্য ভিডিও তে কে আপনার ভিডিওটা বেটার হবে । তাই অবশ্যই টুকটাক ভিডিও এডিটিং শিখে নিন ইউটিউবে টিউটোরিয়াল দেখে । 

ধাপ ১ - আপনার প্রত্যেকটি ভিডিওতে যদি হাজারের মতো ভিউ আসে তাহলে আপনি স্পনসর্শিপ নিতে পারেন ।
স্পন্সরশীপ কিভাবে পাবেন আমি আপনাকে সহজে বলি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে স্পনসর্শিপ পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে কিছু স্টেপ ফলো করতে হবে । আপনার ইউটিউব এর এবাউট সেকশনটি ভালো ভাবে সাজানো কারণ এবাউট সেকশনে আপনার পার্সোনাল একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এবং একটি জি-মেইল এবং আপনার কোন ফেসবুক গ্রুপ অথবা মেসেঞ্জার  মেসেজিং কোন অপশন থাকলে সেটি এড করুন । বিভিন্ন প্রডাক্টে কোম্পানির ওয়েবসাইট অথবা যে কোন জায়গায় গেলে আপনি দেখতে পারবেন তাদের সাথে কন্টাক এর একটি অপশন আছে তখন আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের লিংক দিতে পারেন দিয়ে বলতে পারেন যে আমি আপনার এই প্রোডাক্ট রিভিউ করতে চাই বা এরকম ফাস্ট টাইম এভাবে পেতে হয় স্পনসর্শিপ কারণ টাকা তো আর আপনার কাছে আসবে না আপনি টাকা কে খুঁজতে হবে । 

ধাপ ২ - ভিডিও মার্কেটিং ভিডিও মার্কেটিং করেও আপনি ভালো পরিমাণ এর একটি ইনকাম করতে পারবেন যেমন বর্তমানে ইউটিউবে নতুন অনেক ইউজার আছে যাদের প্রোমোশন টা একটু প্রয়োজন মানে আপনি যদি তাদের চ্যানেলটি প্রমোট করে দেন তাহলে আপনাকে তারা একটি ফি কিন্তু দিবে । 

ধাপ ৩ - নিজের কাস্টমার বৃদ্ধি, আপনি যদি কোনো কাজ জেনে থাকেন যেটি আপনি খুব ভালো ভাবে জানেন সেটি হতে পারে অনলাইন ভিত্তিক কাজ যেমন সাধারণ কিছু কাজ আমি আপনাকে বুঝিয়ে বলতে গেলে মনে করুন আপনি একটি ব্লগ ওয়েব সাইট ডিজাইন করতে পারেন ব্লক ওয়েবসাইট কিন্তু যে কেউ ডিজাইন করতে পারে কিন্তু এটিতে অনেক সময় ব্যয় হয় তাই আপনি আপনার ভিডিওতে যেতে কাজ আপনি জানেন সেইগুলা  ভিডিওর যে কোন অংশে বলে দিতে পারেন অথবা ডিস্ক্রিপশন এ দিতে পারে যে আপনি এই কাজগুলো করে দিতে পারবেন । 

ধাপ ৪ -  ইউটিউব এ ভিডিও তৈরি করে নিজের ওয়েবসাইটে ভিজিটর ভিত্তি করে ইনকাম করা এটি নিয়ে অলরেডি আমি কথা বলেছি তাই আর কথা লম্বা করতে চাচ্ছি না । 

ধাপ ৫ -  আপনি যদি ইউটিউব এক মানুষকে কোন কিছু শিখান মানে আমি আপনাকে উদাহরণস্বরূপ বলি আপনি একজন ওয়েব ডেভেলপার আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখাচ্ছে ইউটিউবে মানে শিখাচ্ছেন বলতে আপনি বেসিক কিছু নলেজ দিচ্ছেন এবং আপনি প্রত্যেকটা ভিডিও  তে বলে দিলেন এটা যে আপনার পেইড কোর্স সম্পর্কে তখন আপনার পেইড কোর্স বিক্রির সম্ভাবনা অনেক ভারে এবং এভাবে অনেকেই কাজ করে যাচ্ছে ইউটিউবে । 

virtual assistant 

এই কাজ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ইংরেজি জানতে হবে । এবং কাজটি আপনাকে করতে হবে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে এখানে আপনি বায়ারদের কিছু কাজ করে দিতে হবে যা তারা প্রজেক্টে বলে দিবে এবং আপনার কোন ডিভাইস প্রয়োজন হবে কাজ করতে তাও তারা উল্লেখ করে দেবে উদাহরণস্বরূপ এই কাজ আপনি মোবাইল ফোন দিয়ে করতে পারেন লেপটপ দিয়ে করতে পারেন ডেক্সটপ দিও করতে পারেন বিস্তারিত জানতে আপনারা ইউটুবে গিয়ে - virtual assistant  লিখে সার্চ দিতে পারেন ।  

ব্লগিং করে ইনকাম ? 

ব্লগিং করে ইনকাম করা যায় এটা আমরা সবাই জানি কিন্তু এর জন্য অবশ্যই আপনাকে শ্রম করতে হবে শ্রম বলতে আপনাকে অবশ্যই কষ্ট করতে হবে কষ্ট না করলে কেষ্ট মেলে না এরা সবাই জানে , এ কথাটি আমার বলার কারণ হচ্ছে অনেক নতুন ব্লগার কপি পেস্ট কপি পেস্ট কপি পেস্ট এইরকম করে তাদের ওয়েবসাইটে ব্লক করে দেন তারপর ব্লগিং নিয়ে খারাপ মন্তব্য করেন যেখান থেকে ইনকাম করা যায় না ইত্যাদি কিন্তু আপনাকে অবশ্যই নিজের কনটেন্ট ইউটিউব বলুন ব্লগ বলুন তো আপনার নিজের কন্টেন্ট থাকা প্রয়োজন । যাই হোক ব্লগে আপনাকে অবশ্যই নিজের কনটেন্ট লিখতে হবে কারো কপি করা যাবে না । ইউটিউব এর মত ব্লগ থেকেও আপনি কিন্তু ইনকাম করতে পারেন । আপনি ব্লগে এডসেন্স এপ্লাই করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন যদি আপনার ওয়েব সাইটে ভালো ভিজিটর থাকে এবং আপনি আপনার ওয়েবসাইটের জন্যে বিভিন্ন কোম্পানি থেকে স্পনসর্শিপ ও নিতে পারেন তাছাড়া আপনি যদি একটি ভাল ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন যেটা একটু পপুলারিটি পেয়ে যায় তাহলে আপনার ইনকামের রাস্তা দেখবেন অটোমেটিক ই খুলে যাবে । 

উপরোক্ত কিছু ট্রিকস আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম যদি এই টিপস গুলো আপনাদের কাছে নতুন হয়ে থাকে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন এবং অলরেডি জেনে থাকলে পুনরায় পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ এবং কমেন্ট করে আপনার মন্তব্য জানাতে পারেন যে আপনি কোন টপিকের উপর আর্টিকেল চাচ্ছেন ।

 চলুন সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম করি - ২০১৮



1 comment:

  1. অনেক সুন্দর আর্টিকেল দাদা

    ReplyDelete