Local Blogging Bangla

Local Blogging Bangla_ হ্যাঁ কথাটা কিন্তু অনেকের কাছে নতুন হতে পারে নতুন হবারই কথা কারণ এই টপিক নিয়ে বেশি কথা বলা হয় না। এবং এই টপিকটি তেমন কার্যকরী ও করে তুলতে পারেন না সবাই এটি জন্য আপনাকে কম হলেও সময় দিতে হবে একমাস। এবং যদি আপনি এই কাজ করে একটি পর্যায়ে নিতে পারেন তাহলে আপনার ইনকামের সোর্স ওপেন হবে প্লাস আপনার পরিচিতি ও বাড়বে।কি কাজটা এবং এটি কোন ধরনের ব্লগিং সবকিছু নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করছি নিচে তাই নিচের লিখাগুলো একটু মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য বলা  হল।
আপনি হয়তো বা জেনে থাকবেন বর্তমানে গুগলে সার্চে প্রায় 20 পার্সেন্ট সার্চ গুগোল ভয়েস সার্চ দিয়ে।
যেমন উদাহরণস্বরূপ কিছু সার্চ: shopping near me,Where is the market, আরো ইত্যাদি ইত্যাদি।এখন Local Blogging মানে কি নামটাই তো অবশ্যই মনে হচ্ছে আপনার আশেপাশের কিছু হবে? হ্যাঁ যেহেতু Local Blogging তাই আমি আপনাকে আপনার এলাকা অথবা আপনার ডিস্ট্রিক এর উপর বৃত্তি করে কাজ করতে হবে।
আরো ভালোভাবে বুঝতে। মনে করুন আপনাদের এলাকাতে অনেক বড় একটি মার্কেট আছে, এবং সে মার্কেট নিয়ে ইন্টারনেটে কোন ডিটেইলস নাই। এখন এরকম কিছু মার্কেটপ্লেস আপনি একত্রিত করুন। এবং যে সব দোকান গুলোর মানে যে সব দোকান গুলো আপনার কাছে ভালো লেগেছে সেগুলোর সম্পূর্ণ অ্যাড্রেস সহ ডিটেইলস একত্রিত করে আপনি ব্লগ এ লিখুন। এখন অনেকেই বলতে পারেন এটা কোন কথা এর জন্য তো গুগল ম্যাপ আছে। হ্যাঁ গুগল ম্যাপ আছে কিন্তু গুগল ম্যাপে কিন্তু সবকিছু ডিটেইলস আকারে দেওয়া থাকে না।
এখন আপনার কাজ হচ্ছে ভালো ভালো দোকান গুলো সব গুলোর নাম ডিটেইলস ফোন নাম্বার দোকানের মালিকের নাম সহ লিখা। এখন সময় করে করে আপনি এরকম ডিটেলস কালেক্ট করে বেশি সময় দিতে হবে না আপনি শুধু একটি মার্কেটকে টার্গেটে রাখে কাজ করতে পারেন। আমার এক ফ্রেন্ড প্রায় পাঁচ মাস আগে এরকম একটি ব্লগ তৈরি করেছে এবং তার কিন্তু এখন অনেক সাইট থেকে ইনকাম হচ্ছে তাই চিন্তা করলাম আপনাদের সাথে এটি শেয়ার করা যাক। এবং বর্তমানে তার ব্লগিং ওয়েবসাইট অনেক ভালো একটি পজিশনে চলে গেছে তার পেজ ভিউ প্রায় ৪০০০-৫০০০+ হয়। হতে পারে এখনো অনেকেই বুঝতে পারেন নি আর একটু বিস্তারিত আলোচনা করি ? 
মনে করুন আপনার এলাকায় একটি  মার্কেট আছে যেটির নাম- [বড় বাজার] এখন আপনি যদি বড়বাজার এই সম্পূর্ণ বাজারটিকে টার্গেট করে একটি ব্লগ তৈরি করেন তাহলে আপনি হয়তোবা ভাবতেও পারছেন না চার থেকে পাঁচ মাস পর আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর কিরকম বৃদ্ধি হবে । আপনার লোকাল মানুষ তো আসবেই এবং সাথে বাহির থেকে যারা আসে তারাও অনেক পরিমাণের আসবে।এবং আপনার এই ওয়েবসাইটে যারা আসবে তারা অবশ্যই টার্গেটেড মানুষ হবে। আশা করি উপরোক্ত বিষয়গুলো বুঝতে পেরেছেন আমি চেষ্টা করেছি ভালো ভাবে বুঝানোর একটু লম্বা হলো আর্টিকেলটি।

ইনকাম

বন্ধুরা ওয়েবসাইটটি যেহেতু তৈরি করেছি আমাদের অনেক সময় ব্যয় করতে হয়েছে কিন্তু অনেক দাম।আমরা তো আর শুধু শুধু শখের বসে ওয়েব সাইট তৈরি করি না সবাই একটু কারো না কারো ইচ্ছা থাকে ইনকাম করার। Local Blogging থেকে কিভাবে ইনকাম করবেন এটা অনেকেই হয়তো ভাবছেন বর্তমানে ?
এখান থেকে আপনি অনেক ভাবেই ইনকাম করতে পারতেছেন হ্যাঁ !
আপনি ভাবুন একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে কত রকমের স্পনসর্শিপ পাওয়া যায়,এবং এডসেন্স দিয়ে ইনকাম আরো অনেক ইনকামের উপায় তো আছেই। কিন্তু এখানে মস্ট পপুলার ইনকাম আমার ফ্রেন্ড যেভাবে করছে তা হচ্ছে তার নিজের এডভাইস থেকে। কি বুঝতে পারেননি ধরুন আপনার যে মার্কেটটি টার্গেটে রেখে ওয়েব সাইটটি তৈরি করেছেন এখন যখন আপনার ওয়েবসাইটটি পপুলারিটি পাবে ভিজিটর বৃদ্ধি হবে তখন আপনি সে মার্কেটে যান। এখন আমি তাদের কাছে যাওয়ার জন্য বলছি যারা একটু স্মার্ট অনলাইনে অ্যাড সম্পর্কে ধারণা রাখছেন তাদের কাছে যান। এবং তাদেরকে আপনার ওয়েবসাইটের কথা বলুন ওয়েবসাইটের ভিজিটর এর কথা বলুন এবং তাদের কাছ থেকে তাদের দোকান এর এড্রেস নাম ঠিকানা সব কিছু কালেক্ট করে তাদের নিয়ে একটি ব্লগ লিখতে পারেন এর ফলে তাদের কাছ থেকে আপনি একটা এমাউন্ট পাবেন। কিন্তু প্রথমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে পপুলারিটি বৃদ্ধি করতে হবে।
তাছাড়া আপনি ইনকাম করতে পারেন এভাবে যে এত জন কাস্টমার গেলে আপনাকে এত টাকা দিতে হবে। এবং বর্তমানে কিন্তু এরকম অনেক ইউটিউবার ইনকাম করছেন। বিভিন্ন বাজেট গ্যাজেট রিভিউ করে তাদের দোকানের অ্যাড্রেস দেন ভিডিওতে এবং  সেখান থেকে তাদের ভিউয়ার্স যদি কোনো কিছু কিনে তাহলে সে দোকানদার ইউটিউবার কে কিছু পরিমাণের টাকা দিচ্ছে, যা সে প্রথমে চার্জ হিসাবে দোকানদারকে বলে রেখেছে। বাংলা অনেক ইউটিউব চ্যানেল আছে এরকম কাজ করে যাচ্ছে এবং ভালো টাকা ইনকাম করছেন।অনেক দোকানদার মালিক এমন আছে যে তাদের দোকানের জন্য ব্যানার তৈরি করে আপনার ওয়েবসাইটে লাগাবেন হ্যাঁ এরকম কিন্তু আমরা অনেক দোকান মালিক পেয়েছি। এবং আপনারা যারা যারা এই লোকাল ব্লগইং নিয়ে কাজ করবেন ভাবছেন তারা নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন আপনি কোন মার্কেট কোন বৃষ্টি কে টার্গেট করছেন যাতে অন্য কেউ সেই মার্কেট অথবা সেই জায়গা নিয়ে ব্লগ তৈরি না করে অন্য কোন ব্লগ যাতে সে তৈরি করে। এবং আমি মনে করি Local Blogging নিয়ে এটাই ফার্স্ট আর্টিকেল ছিল বাংলায় অথবা দুই একটা হয়তোবা থাকলে থাকতেও পারে।
এইরকম ব্লগিং আইডিয়া পেতে হলে অবশ্যই কমেন্ট করতে ভুলবেন না আপনাদের কমেন্ট পেলে আমরা নতুন নতুন ব্লগিং ক্যাটাগরি সম্পর্কে ধারণা দিতে উৎসাহিত বোধ করি।

শেষ কথা

বন্ধুরা ব্লগিংয়ের যে এই একটি টপিক এটি না ব্লগিংয়ের অনেক টপিক রয়েছে  যা নিয়ে আমাদের ওয়েবসাইটে অলরেডি আর্টিকেল লিখা আছে এখন আমরা আর্টিকেল কেন শেয়ার করছি যাতে সবাই জানতে পারে যে এই রকম ভাবে ব্লগিং করা যায়। সর্বশেষ কথা হচ্ছে আপনি যে কাজটি করুন না কেন অফ লাইনে বলুন অনলাইনে বলুন আপনার ধৈর্য থাকতে হবে ধৈর্য্য ছাড়া আপনি কোন কাজেই পরিপূর্ণভাবে সফল হতে পারবেন না । আর যেহেতু আমরা ব্লগারদের নিয়ে বেশিরভাগ নতুনদের নিয়ে আর্টিকেল লিখি তাই আমি আপনাকে বলব আপনি প্রথমত একটি ওয়েবসাইট কে রেংকিং করুন তারপর আরেকটি ওয়েবসাইট তৈরি করলে করুন প্রথমে একটি ওয়েবসাইট নিয়েই থাকুন।




1 comment: